কোলো টুরের সাথে চুক্তিতে একমত হয়েছে লিভারপুল

লিভারপুল ফুটবল ক্লাব আজকে জানিয়েছে তারা কোলো টুরের (Kolo Toure) সাথে চুক্তিতে একমত হয়েছে যিনি জুলাই ১ তারিখে ক্লাবে যোগদান করছেন।

এই শক্তিশালী ডিফেন্ডার একজন রেড্স হিসাবে যোগ দিবেন যখন ম্যানচেস্টার সিটির সাথে তার চুক্তি শেষ হয়ে যাবে।

৩২ বছরের টুরে তার অসামান্য অভিজ্ঞতার ঝুলি নিয়ে এনফিল্ড (Anfield) আসবেন। ২০০২ সালে ইংলিশ ফুটবলে যোগদান করে তিনি প্রিমিয়ার লীগের দুটি দল ম্যানচেষ্টার সিটি (Manchester City) ও আর্সেনালের (Arsenal) হয়ে খেলেন। ২০১৩-১৪ মৌসুমে তার এই অভিজ্ঞতা ব্রেন্ডান রজার্সের (Brendan Rodgers) রক্ষণ ভাগকে শক্তিশালী করবে।

এই আইভরিকোস্ট (Ivory Coast) আন্তর্জাতিক খেলোয়ারকে তার স্বদেশী ক্লাব এসেক মিমোসাস (ASEC Mimosas) থেকে কিনে নেন আর্সেন ওয়েনগার (Arsene Wenger), তিনি (টুরে) গানার্সদের (Gunners) হয়ে প্রথম ২০০২ সালে মিলেনিয়াম স্টেডিয়ামে (Millennium Stadium) লিভারপুলের বিরুদ্ধে কমিউনিটি শিল্ড টুর্নামেন্ট খেলতে মাঠে নামেন।

প্রথমে তিনি একজন মিডফিল্ডার বা ফুল-ব্যাক হিসেবে মাঠে নামতেন, পরে টুরেকে সেন্টার-ব্যাক হিসেবে ২০০৩-০৪ মৌসুমে খেলানো হয় এবং যা আর্সেনালকে সাহায্য করে পুরো মৌসুম অপরাজিত থাকতে ও শিরোপা জিতে নিতে। আগের মৌসুমের মতো আরও একবার এফএ (FA) কাপের শিরোপা তুলে নেয় তারা।

20130529-030848.jpg

তিনি দ্বিতীয় এফএ কাপ যোগ করেন ২০০৫ সালে, যার এক বছর পর তিনি চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে আর্সেনাল দলে ছিলেন যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ ছিল বার্সেলোনা (Barcelona)। সেমি-ফাইনাল খেলায় তিনি ভিয়ারিয়ালের (Villarreal) বিপক্ষে গোল করেন যা ছিল ম্যাচের দুই লেগের এক মাত্র গোল।

লন্ডনের এই ক্লাবের হয়ে দুইশরও বেশিবার মাঠে নামার পর, টুরে প্রমান করেন তিনি লীগের অন্যতম একজন সেরা সেন্টার-ব্যাক। আর ম্যানচেস্টার সিটি যথাযথ ভাবে তাকে ২০০৯ সালে ‘ছিনিয়ে’ নেয় এবং ক্লাবের ক্যাপ্টেন হিসেবে সরাসরি দায়িত্ব প্রদান করে।

তার চার বছর ইস্টল্যান্ডস্ (Eastlands) থাকা কালিন সময়ে তিনি সিটির হয়ে ১০০ বারের বেশি মাঠে নামেন, যেখানে তিনি আরও একবার প্রিমিয়ার লীগ এবং এফএ কাপ জেতেন।

আন্তর্জাতিক পর্যায়ে, টুরে আইভরিকোস্টের হয়ে দুইবার আফ্রিকান কাপ অব নেশনস এবং দুইবার বিশ্বকাপ চুড়ান্ত পর্যায়ে খেলেন। নিজের দেশের হয়ে তিনি শতবারের বেশি মাঠে নেমেছেন যেখান ক্যাপ্টেন ‘আর্মব্যান্ড’ ও পড়েছেন।

ক্লাবে যোগদানের পরে তিনিই হবেন প্রথম আইভরিয়ান যিনি লিভারপুলের হয়ে খেলবেন।