মার্টিন স্কার্টেল কি সত্যিই বিগ ম্যাক অর্ডার করেছিলেন?

কিছুদিন আগে লিভারপুল এফসি-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট মার্টিন স্কার্টেলের একটি সাক্ষাত্কার নেয়। টুইটার এবং ওয়েবসাইট থেকে নেয়া ভক্তদের করা বিভিন্ন মজার প্রশ্নের উত্তর দেন তিনি। সেই সাক্ষাত্কারটি বাংলায় দেয়া হলো আজ।

১। বর্তমান দলের খেলোয়ারদের মধ্যে যদি পাঞ্জার লড়াই হয় তাহলে কে জিতবে?

মার্টিন: এটা বলা কঠিন তবে মনে হয় পেপে অথবা ড্যানিয়েল এগার।

২। লিভারপুলে আসার পর আপনার ক্যারিয়ারের সব থেকে সেরা সময় ছিল কোনটি?

মার্টিন: আমার মনে হয় কার্লিং কাপ জেতা কারন লিভারপুলের হয়ে এটা ছিল আমার প্রথম পদক প্রাপ্তি এবং ফাইনাল খেলায় আমি গোল করেছিলাম, সুতরাং এইটাই ছিল সেই দিন।

Football - Liverpool sign Martin Skrtel

 ৩। আপনি কি বলবেন যে এইটাই ছিল আপনার পুরো ক্যারিয়ারের মধ্যে সব থেকে সেরা মুহুর্ত নাকি আরো আছে?

মার্টিন: হা, খুব সম্ভবত – এর সাথে রাশিয়াতে চ্যাম্পিয়ন হওয়াটাও আছে।

৪। আপনার প্রিয় চলচিত্র কোনটি? দয়া করে বলবেন ‘ফাইট ক্লাব’ …

মার্টিন: না, আসলে এটা রাসেল ক্রোর ‘গ্ল্যাডিয়েটর’ – আমার সবসময়ই এই সিনেমাটা দেখতে ভালো লাগে।

৫। এটা কি আপনি বার বার দেখেন?

মার্টিন: আমি এটা বেশ কয়েকবার দেখেছি কিন্তু এখন সিনেমা দেখার সময় তেমন একটা পাই না কারন আমার ছেলে আমাকে ব্যস্ত রাখে।

৬। এই মৌসুমের শেষে জিমি ক্যারাঘারের অবসরে যাওয়ার সিদ্ধান্তের ব্যপারে আপনার অনুভূতি কি এবং একজন ডিফেন্ডার হিসাবে তার কাছ থেকে আপনি কি শিখেছেন?

মার্টিন: এটা বলতেই হবে তিনি আমার ক্যারিয়ারে অনেক সাহায্য করেছেন কারন যখন লিভারপুলে যোগদান করি তখন তার মত এবং সামি হুপিয়ার মত খেলোয়ারদের সাথে আমার প্রশিক্ষনের সুযোগ হয় যা আমার অনেক উপকার করেছিল – এটা খুবই অসাধারন ছিল আমার জন্য। অবসরে যাবার সিদ্ধান্তটা ছিল তার নিজের এবং সেটা আমাদের মেনে নিতে হবে আর তার পরবর্তী ক্যারিয়ারের জন্য আমার তরফ থেকে থাকবে অনেক শুভো কামনা।

৭। আপনার যে ট্যাটু গুলো আছে এগুলো আপনার কাছে কি কোন মানে রাখে?

মার্টিন: হ্যা, আমার ছেলে এবং আমার স্ত্রীর নাম লেখা আছে আমার পেছনে। আমার নম্বর ৩৭ আছে আমার হাতে। প্রতেকটাই আমার কাছে কোনো না কোনো মানে রাখে।

৮। গত মৌসুমে ব্লাকবার্ন-এর বিরুদ্ধে খেলার সময় দলের ক্যাপ্টেন হওয়ার অনুভূতি কেমন ছিল?

মার্টিন: এটা একটা অসাধারন অনুভূতি ছিল কারন লিভারপুলের ক্যাপ্টেন হওয়াটা খুবই সম্মানের। আমি সময়টা দারুন উপভোগ করেছি এবং আমি আশা করবো ভবিষ্যতে এরকম আবার হবে।

৯। আপনি যাদের বিরুদ্ধে খেলেছেন তাদের মধ্যে সব থেকে সেরা কে ছিলেন এবং কেন?

মার্টিন: আমি বলব জিনেদিন জিদান। আমি তার বিরুদ্ধে একবারই খেলেছি জাতীয় দলের হয়ে ফ্রান্সের বিপক্ষে। আমি মনে করি ফুটবলের ইতিহাসে তিনি সর্বকালের সেরাদের একজন। তার বিরুদ্ধে খেলাটা কঠিন ছিল কিন্তু আমি খুবই উপভোগ করেছি।

১০। গত মৌসুমে আপনার ফর্ম আপনি কিভাবে মূল্যায়ন করবেন?

মার্টিন: এটা আরো ভালো হতে পারত কারন এই মৌসুমটি আমার জন্য ভালো ছিল না এবং আমি জানি আমি অনেক ভুল করেছি। কিন্তু ফুটবলে এমনটা হয়। আমি আরো ভালো করার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাব এবং ভবিষ্যতে আরো ভালো হব।

Football - FA Premier League - Liverpool FC v Queens Park Rangers FC

১১। ব্যক্তিগতভাবে আপনার কোন জিনিষটি আরো ভালো করতে হবে বলে আপনি মনে করেন?

মার্টিন: আমার বয়স এখন ২৮ আর আমি বলতে পারি আমি এখন অভিজ্ঞ কিন্তু আপনি সব সময় নতুন জিনিস শিখতে পারবেন এবং আমি প্রতিদিনের প্রশিক্ষনে সেটাই করার চেষ্টা করি। আমার ‘পজিশনাল প্লে’ এবং বলের দক্ষতা বাড়ানোর চেষ্টা আমি করে যাই, তাই প্রতিদিন আমি কিছু না কিছু উন্নতি করছি এবং সেটাই আমি করার চেষ্টা করি।

১২। আমরা জানি আপনার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট আছে কিন্তু কখনো কি টুইটারে যোগ দেয়ার কথা ভেবেছেন?

মার্টিন: আসলে না। আমি সামাজিক যোগাযোগের সাইট, ফেইসবুক, টুইটারের ভক্ত নই। ভবিষ্যতে কি হবে জানিনা কিন্তু আমার মনে হয়না আমি ফেইসবুক বা টুইটার ব্যবহার করব।

 ১৩। লিভারপুলের হয়ে আপনার করা সব থেকে প্রিয় গোল কোনটি?

মার্টিন: আমি বলব কার্লিং কাপের ফাইনালে করা ওই গোলটি। কিন্তু দৃষ্টিনন্দন গোলটি ছিল ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে করা একটি গোল কারন ওটা একটা দারুন গোল ছিল।

১৪। বর্তমান লিভারপুল দল থেকে পাঁচ সদস্যের একটি দল যদি আপনাকে বেছে নিতে বলা হয় তাহলে আপনি কাদের বেছে নেবেন এবং কেন?

মার্টিন: আমি গোলরক্ষক দিয়ে শুরু করব, তাই প্রথমে আমি বেছে নেব পিটার গুলাচিকে (এটি লেখার সময় তিনি লিভারপুল ছেড়ে অস্ট্রিয়ার একটি ক্লাবে যোগ দিয়েছেন) কারন সে আমার প্রতিবেশী রাষ্ট্রের মানুষ। তারপর আমি নিজে, ড্যানিয়েল এগার, স্টিভি এবং লুইস সুয়ারেজ।

১৫। লিভারপুলে আপনার প্রিয় বন্ধু কে?

মার্টিন: খুব সম্ভবত পিটার গুলাচি এবং ড্যানিয়েল এগার কিন্তু দলের প্রতিটি খেলোয়ারের সাথে আমার দারুন ভালো সম্পর্ক আর দলে চমৎকার একটি পরিবেশ বিদ্যমান তাই আমি এইখানে থাকতে খুবই সাচ্ছন্দ বোধ করি।

১৬। আপনার ক্যারিয়ারের কোনো কিছু কি আপনি পরিবর্তন করতে চান – অতীত বা বর্তমান?

মার্টিন: আমার মনে হয় না কারন আমার ক্যারিয়ার সামনের দিকেই এগোচ্ছে, আমি শুরু করেছিলাম স্লোভাকিয়াতে, তারপর গেলাম রাশিয়া, এরপর চলে এলাম ইংল্যান্ড, তাই আমার মনে হয় আমি কিছু বদলাবনা।

 ১৭। এটা কি সত্যি যে আপনি স্লোভাকিয়ান রপ মিউজিক শোনেন?

মার্টিন: হ্যা, এটা ঠিক। একটা ব্যান্ড আছে – সদস্যদের আমি চিনি এবং তাদের গান শুনতে আমার ভালো লাগে। ছুটির সময় যদি সুযোগ পাই আমি চেষ্টা করি তাদের কনসার্ট-এ যোগ দেয়ার জন্য। এটা সত্যি আমি শুনি।

১৮। মেলউড-এ আপনার কোনো সতীর্থকে কি আপনি এই গান শোনানোর চেষ্টা করেছেন?

মার্টিন: না। কারোর এটা ভালো লাগবে না! আমি চেষ্টাও করি না।

১৯। এটা কি সত্যি যে আপনি এতটাই কঠিন যে আপনি বার্গার কিং-এ গেছেন এবং বিগ ম্যাক অর্ডার করেছেন?

মার্টিন: না, আমি তা করিনি। আমি ব্যনারটি দেখেছি – যতদুর মনে পরে ওটা আসলে কার্লিংকাপের ফাইনাল ছিল। এটা খুবই মজার ছিল – আমি খুব হেসেছিলাম।

Football - FA Cup - Semi-Final - Everton FC v Liverpool FC

২০। আপনি কি মনে করেন এই মৌসুমে দল হিসেবে লিভারপুল উন্নতি করেছে?

মার্টিন: আমি তাই মনে করি কারন আপনি দেখবেন কিছু কিছু খেলায় আমরা অসাধারন খেলেছি কিন্তু যথেষ্ট গোল না পাবার দরুন আমাদের পয়েন্ট হারাতে হয়েছে। কিন্তু আপনি যদি খেলাগুলো দেখেন, দেখবেন সেরা চার পাঁচটা দলের সাথে আমরা আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছি অথবা ওটা ছিল ফিফটি-ফিফটি, সুতরাং আমি মনে করি আমরা এই মৌসুমে অনেক উন্নতি করেছি। আমি আশা করি ভবিষ্যতে ফলাফল আরো ভালো হবে।

২১। মেলউড-এ সব থেকে সেরা টাক মাথার স্টাইল কার?

মার্টিন: সম্ভবত পেপে!

 ২২। আপনি কি ম্যাচ জেতানো গোল করতে চান নাকি ‘ক্লিন শিট’ রাখতে চান?

মার্টিন: আমি একজন ডিফেন্ডার তাই আমি ‘ক্লিন শিট’ রাখাকেই প্রাধান্য দেব।

২৩। আপনার দেখা সেরা ডিফেন্ডার কে?

মার্টিন: আমি সব সময় ফাবিও কানাভেরোর মত খেলোয়ারদের অনুসরন করেছি, সুতরাং আমি তাকেই বেছে নেব।